তৃণমূলে ফিরতে চেয়েছিলেন মণীশ, তাই কি খুন? অর্জুনকে নিশানা ফিরহাদের, জানালেন, ‘বাংলা উত্তর প্রদেশ নয়, এখানে বিচার হবে’

অর্জুন সিংহ ঘনিষ্ঠ বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লার হত্যাকাণ্ডে ক্রমশ ঘোরালো হচ্ছে রাজনীতি। একদিকে বিজেপি নেতার খুনের ঘটনায় রাজ্যের শাসক দল সহ পুলিশকে কাঠগড়ায় তুলেছে গেরুয়া শিবির, সেখানে বিজেপিকেই পাল্টা দুষলেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী ও তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম। পাশাপাশি, টিটাগড়ে বিজেপি নেতার খুনে বারাকপুরের বিজেপি সাংসদকেই নিশানা করে তিনি ষড়যন্ত্রের তত্ত্ব সামনে আনলেন। রাজ্যের পুরমন্ত্রীর দাবি, সম্প্রতি তৃণমূলে ফিরতে চেয়েছিল মণীশ শুক্লা।

সোমবার ফিরহাদ হাকিম বলেন, যে কোনও মৃত্যুই দুঃখের। আমার সঙ্গে ওঁর (মণীশ শুক্লা) ভালো সম্পর্ক ছিল। বারাকপুরে যখন মিটিং করতে গিয়েছিলাম সেই সময় দীনেশদার (ত্রিবেদী) হয়ে যাবতীয় প্রচার কর্মসূচি মণীশই করেছিল। কিন্তু ভোটের আগে অর্জুন ওঁকে চাপ দিয়ে বিজেপিতে যেতে বাধ্য করে।’

এরপরেই অর্জুন সিংহের দিকে তোপ দেগে ফিরহাদ বলেন, যে অস্ত্র দিয়ে ওঁকে মারা হয়েছে সে অস্ত্র পশ্চিমবঙ্গের ক্রিমিনালদের ব্যবহার করতে আমরা আগে দেখিনি। তবে কি বাইরে থেকে লোক নিয়ে আসা হয়েছিল? ফিরহাদের কথায়, ভোটের সময় অর্জুন বাইরে থেকে অনেক লোক নিয়ে এসেছিল। তাদের মধ্যে শার্প শুটার ছিল বলেও শুনেছি। তাদের মধ্যে একজন আবার পুলিশের গুলিতে মারা গিয়েছে। এক্ষেত্রেও তারাই কি এই ঘটনা ঘটিয়েছে? ফিরহাদের কটাক্ষ, রাজ্যে এই কালচার আমদানি করেছেন বারাকপুরে অর্জুন সিংহ।

তিনি আরও বলেন, আমার কাছে খবর আছে যে, মণীশ বিজেপিতে অশান্তিতে ছিল। তৃণমূলের ফিরে যাবে বলে অনেককে জানিয়েছিল। ফিলারও পাঠিয়েছিল অনেককে। এক গাড়িতে অর্জুন সিংহ এবং মণীশ ছিল বলেই শুনেছি। সেখান থেকে হঠাৎ অর্জুন নেমে গেল কেন? সেই সময়ই কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ফোন এল অর্জুনের কাছে আর অর্জুন কলকাতায় চলে এল। এর পিছনে কোনও চক্রান্ত নেই তো? প্রশ্ন রাজ্যের পুরমন্ত্রীর।

তাঁর কথায়, বিজেপির অনেক ছোট নেতা আছেন কলকাতায়, যাঁরা সেন্ট্রাল ফোর্স পান। কেন মণীশ শুক্লার নিরাপত্তায় সিআরপিএফ দেওয়া হয়নি, সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি।

তবে কারা খুন করেছে, পুলিশ খোঁজ করবে বলে মন্তব্য করেন ফিরহাদ। তাঁর কথায়, এটা উত্তর প্রদেশ নয় যে এনকাউন্টার করে মারা হবে। এটা বাংলা, এখানে বিচার হবে। শাসকদলের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে সোমবার ফিরহাদ বলেন, আমরা গান্ধীবাদে বিশ্বাসী, দাঙ্গা, মার, খুনে বিশ্বাস করি না। অহিংসার পথে থাকব, গণতন্ত্রের পথেই কাজ করব। পাশাপাশি বিজেপির দাবি নস্যাৎ করে এই হত্যাকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের যে প্রয়োজন নেই, তাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম।

 

Comments
Loading...