মনমোহন সিংহ: নোটবন্দি এবং তাড়াহুড়োর জিএসটির কারণেই মন্দা, বাতলে দিলেন মন্দা কাটানোর উপায়

নোটবন্দি এবং তাড়াহুড়ো করে লাগু করা জিএসটি। অর্থনীতির শ্লথতার নেপথ্যে মূল কারণ এই দুটি। মন্তব্য প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা অর্থনীতিবিদ ডক্টর মনমোহন সিংহের। হিন্দি সংবাদপত্র দৈনিক ভাস্করকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বলেন, নোটবন্দির পর যখন দেশের অর্থনীতি নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে, ঠিক সেই সময় অযথা তাড়াহুড়ো করে জিএসটি লাগু করা হল। অর্থনীতির শিক্ষক ডক্টর মনমোহন সিংহ বলছেন, এই ধাক্কা সামলাতে পারেনি অর্থনীতি। তার জেরেই মন্দা। তবে সেই মন্দা থেকে বেরোনোর রাস্তাও বাতলে দিয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী।

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বলেন, মোদী সরকারের প্রথম কাজ হওয়া উচিত জিএসটি সরলীকরণ। এর জেরে জিএসটি খাতে রাজস্ব ক্ষতি হলেও, তা করতে হবে বলে জানিয়েছেন ডক্টর মনমোহন সিংহ। গ্রামীণ অর্থনীতিতে ব্যয়ের প্রসার এবং কৃষিক্ষেত্রে সরকারি উৎসাহ প্রদান সরকারের এখন প্রধান লক্ষ্য হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য মনমোহনের। পাশাপাশি তাঁর পরামর্শ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয় এমন ক্ষেত্র যেমন অটোমোবাইল, বস্ত্র শিল্প এবং ইলেক্ট্রনিক্স সেক্টরে সহজ শর্তে ঋণ প্রদানের বন্ধ দরজা খুলতে হবে। একই সুবিধা যেন পায় ছোট ব্যবসাক্ষেত্রও।

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মুখ খুলেছেন ব্যাঙ্ক সংযুক্তিকরণ নিয়েও। মনমোহন সিংহ বলেন, ব্যাঙ্ক সংযুক্তিকরণের মাধ্যমে ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করে তোলা যায়, এটা ঠিকই। কিন্তু তাও প্রশ্ন উঠছে, কারণ এই পদক্ষেপের সময়।

দেশের বৃদ্ধি নেমেছে তলানিতে। কাজ থেকে নিত্য ছাঁটাই হচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ। বিক্রির অভাবে ধুঁকছে দেশের গাড়ি শিল্প, বস্ত্র শিল্প। অন্যান্য ক্ষেত্রেও পরিস্থিতি একেবারেই আশাব্যঞ্জক নয়। শিল্পপতিরা নিয়ম করে কেন্দ্রের কাছে সাহায্যের আবেদন জানাচ্ছেন। পরিস্থিতির গুরুত্ব আঁচ করে ইতিমধ্যেই কয়েক দফা পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়েছে নির্মলা সীতারমণের অর্থ মন্ত্রক। কিন্তু তাতে কাজের কাজ হবে কি কিছু? ঘুরে দাঁড়াতে পারবে, ৫ ট্রিলিয়নের স্বপ্ন দেখা ভারতের অর্থনীতি? এই প্রশ্নের উত্তর এখনও অমিল। এরই মধ্যে মন্দার কারণ এবং এই পরিস্থিতি থেকে বেরোনোর রাস্তা দেখালেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ। এই পথ অনুসরণ করলে আগামী ৩-৪ বছরের মধ্যে দেশের অর্থনীতি ফের বৃদ্ধির ট্র্যাকে ফিরতে পারবে বলে মনে করেন তিনি।

Comments
Loading...