১৯ লক্ষ চাকরি দেবেন বলেছিলেন, ভোলেননি তো? শপথের পরই নীতীশকে খোঁচা তেজস্বীর, বিজেপি মনোনীত মুখ্য মন্ত্রী কটাক্ষ প্রশান্ত কিশোরের

বিহারে টানা চতুর্থবারের জন্য মুখ্য মন্ত্রী পদে শপথ নিলেন নীতীশ কুমার। তাঁর সঙ্গেই শপথ নিলেন দুই ডেপুটি তারকিশোর প্রসাদ ও রেণু দেবী।  দু’জনেই বিজেপির। হাজির ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। এমন দিনেও বিরোধী কটাক্ষ থেকে রেহাই পেলেন না নীতীশ। একদিকে তেজস্বী যাদব চাপ বৃদ্ধি করলেন এনডিএর ইশতেহারের প্রতিশ্রুতি মতো ১৯ লক্ষ চাকরি দেওয়ার ব্যাপারে, অন্যদিকে একদা নীতীশ কুমারের পার্টির সহ সভাপতি প্রশান্ত কিশোর নয়া মুখ্য মন্ত্রীকে কটাক্ষ করে লিখলেন, বিজেপি মনোনীত মুখ্য মন্ত্রী!  

ভোট প্রচারের সময় ১০ লক্ষ সরকারি চাকরি দেওয়ার কথা বলে বিহারে তোলপাড় ফেলে দিয়েছিলেন লালু পুত্র তেজস্বী যাদব। স্বভাবতই অপ্রস্তুত বিজেপি ও জেডিইউ নেতারা ব্যাক ফুটে চলে যান। পরিস্থিতি সামলাতে এনডিএর ইশতেহারে দাবি করা হয় ১৯ লক্ষ চাকরি দেওয়ার। 

ভোট শেষ, এবার দু’পাশে বিজেপির দুই উপ মুখ্য মন্ত্রীকে নিয়ে নতুন করে বিহার শাসনে নামবেন নীতীশ। যা মোটেই সহজ হবে না বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। এই অবস্থায় শপথের দিনই আক্রমণ শুরু করে দিল বিরোধীরা। তারই প্রথম কিস্তি তেজস্বীর খোঁচা। তিনি লেখেন, আশা করব নীতীশ জি প্রতিশ্রুতি মেনে ১৯ লক্ষ চাকরি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সেচ ব্যবস্থার উন্নতিকে অগ্রাধিকার দেবেন।  

একইদিনে কটাক্ষ এসেছে নীতীশ কুমারের একদা সহকর্মীর কাছ থেকেও। বিকেল সাড়ে ৫ টা নাগাদ প্রশান্ত কিশোর নিজের হ্যান্ডলে লেখেন, বিজেপি মনোনীত মুখ্য মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার জন্য নীতীশ কুমারকে অভিনন্দন। তারপর লিখেছেন, একজন পরিশ্রান্ত ও রাজনৈতিক বামনে পরিণত হওয়া নেতা মুখ্য মন্ত্রী হওয়ায় বিহারের মানুষকে আরও কয়েক বছর কুশাসনের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে।  

বিহারের ভোটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে মাত্র ৩ টি আসন বেশি পেয়েছে এনডিএ। দারুণ লড়েও শেষরক্ষা হয়নি মহাজোটের। এই অবস্থায় শপথ মিটতে না মিটতেই নীতীশ কুমারকে লক্ষ্য করে তোপ দাগা শুরু। 

Comments
Loading...