কানহাইয়া কুমারকে বাদ দিয়ে বিহারে জোট চূড়ান্ত করলেন তেজস্বী-রাহুল! আরজেডি ২০, কংগ্রেস ৯ আসনে লড়বে

বিহারের বেগুসরাই লোকসভা কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হিসেবে নাম উঠে এসেছিল জেএনইউ-এর জনপ্রিয় ছাত্রনেতা কানহাইয়া কুমারের। কিন্তু বিহারে বিজেপি বিরোধী জোটের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর দেখা গেল সেখানে নাম নেই কানহাইয়া কুমারের। সিপিআই নেতা কানহাইয়া কুমারকে বাদ দিয়েই বিহারে জোট চূড়ান্ত করল আরজেডি-কংগ্রেস।
সিপিআই সাধারণ সম্পাদক সুধাকর রেড্ডি জানান, আরজেডি প্রধান লালুপ্রসাদ যাদবের সঙ্গে এ ব্যাপারে সরাসরি কথা হয়েছিল। কিন্তু লালুর বদলে আরজেডির দায়িত্বে থাকা তেজস্বী যাদব জোটধর্ম পালন করলেন না। তাঁর কথায়, তেজস্বী যাদব যা করলেন, তাতে আমরা বিস্মিত। এই পরিস্থিতিতে বিহারে সিপিআই একাই লড়াই করবে এবং কানহাইয়া প্রার্থী হবেন বলে সূত্রের খবর।
অন্যদিকে, তেজস্বী যাদবের রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) সূত্রে খবর, কানহাইয়া কুমারের নাম আলোচনার মধ্যেই ছিল না। আরজেডি সূত্রে এও খবর, তেজস্বী যাদব কানহাইয়া কুমারকে পছন্দ করেন না। জোট সংক্রান্ত আলোচনার জন্য কানাহাইয়া কুমারকে একাধিকবার ফোন করেছিলেন তেজস্বী যাদব, কিন্তু এই ছাত্র নেতার তরফে কোনও আগ্রহ দেখানো হয়নি।
২০১৬ সালে জেএনইউ বিতর্কের পর কানহাইয়া কুমার যখন বিহারে গিয়েছিলেন, সেই সময় লালু প্রসাদের দল তাঁকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানিয়েছিল। সময় গড়িয়েছে। পশু খাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এখন জেলবন্দি। তাঁর ছেলে এখন দল সামলাচ্ছেন। সূত্রের খবর, তেজস্বী যাদবের দল নাকি ভয় পেয়েছে ‘ভালো বক্তা’ কানহাইয়া কুমারের উত্থান তেজস্বী ও আরজেডির শীর্ষ নেতৃত্বকে ছাপিয়ে যেতে পারে।
সূত্রের খবর, বিহারে আরজেডি ২০ টি এবং কংগ্রেস ৯ টি সিটে লড়াই করবে। বিহারে এই জোটে সিপিআইএমএল (লিবারেশন) কেও শরিক করা হয়েছে, কিন্তু কানহাইয়া কুমারের নাম কেন বাদ দেওয়া হল তা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে।

Comments
Loading...