অসম এনআরসিঃ ১৯ লক্ষ মানুষকে বাদ পড়ার কারণ জানিয়ে ১ মাসের মধ্যে চিঠি, সেই অনুযায়ী আবেদন ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে

অসমের চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জিতে ঠিক কী কারণে জায়গা হয়নি, তা আগামী ১ মাসের মধ্যে জানতে পারবেন বাতিলরা। ইংরেজি দৈনিক ইকনমিক টাইমসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, তারপরেই ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে নিজেদের নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য আবেদন করতে পারবেন তাঁরা। ইংরেজি দৈনিক দ্য ইকনমিক টাইমসে প্রকাশিত হয়েছে এই খবর।
গত ৩১ শে অগাস্ট প্রকাশিত অসমের চূড়ান্ত এনআরসি থেকে ১৯ লক্ষ মানুষের নাম বাদ পড়েছে। যার মধ্যে প্রায় ১২ লক্ষ হিন্দু। কিন্তু ঠিক কী কী কারণে নাগরিকপঞ্জিন্তে ১৯ লক্ষ মানুষের জায়গা হয়নি তা আগামী ১ মাসের মধ্যেই জানা যাবে।
এনআরসির এক শীর্ষ আধিকারিক দ্য ইকনমিক টাইমসকে জানান, নাগরিকপঞ্জি থেকে বাতিল হওয়া ১৯ লক্ষ মানুষের প্রত্যেককে আলাদা আলাদা ভাবে চিঠি পাঠানো হবে। সেখানে জানিয়ে দেওয়া হবে, এনআরসির তালিকা থেকে কেন তিনি বাদ পড়েছেন। সেই অনুযায়ী অসমের ফরেনার্স ট্রাইবুন্যালে আবেদন করা যাবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই এনআরসি কর্তা দ্য ইকনমিক টাইমসকে জানান, নভেম্বর মাসের মধ্যেই এই প্রক্রিয়া শেষ করা হবে। তারপর এনআরসি থেকে বাতিলরা ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালের দ্বারস্থ হতে পারবেন।
এনআরসিতে জায়গা না হলেই কাউকে বিদেশি বলে ঘোষণা করা হবে না। বাতিলরা উপযুক্ত প্রমাণপত্র নিয়ে ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে নিজেদের নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এনআরসি দফতর থেকে চিঠি পাওয়ার ১২০ দিনের মধ্যে ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে আবেদন করতে হবে। ট্রাইব্যুনালে কেউ মামলা হারলে উচ্চ আদালত এবং তারপর সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করতে পারবেন।
অসমে এনআরসিতে নাম তোলার আবেদন করেছিলেন ৩ কোটি ৩০ লক্ষ ২৭ হাজার ৬৬১ জন। এর মধ্যে চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জিতে ঠাঁই পান ৩ কোটি ১১ লক্ষ ২১ হাজার ৪ জন। এনআরসি অসম কো-অর্ডিনেটরের দফতর সূত্রে জানা যায়, মোট ১৯ লক্ষ ৬ হাজার ৬৫৭ জনের নাম চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়েছে।

Comments
Loading...