কাশ্মীরে ঢুকতেই পারলেন না রাহুল-ইয়েচুরি-দীনেশ ত্রিবেদীরা, ফেরত শ্রীনগর বিমান বন্দর থেকেই, সুপ্রিম কোর্টে মামলা ইয়েচুরির

পরিস্থিতি ঘুরে দেখতে গিয়েছিলেন, চেয়েছিলেন স্থানীয় মানুষের সঙ্গে কথা বলতে। কিন্তু কাশ্মীর উপত্যকা তো দূর অস্ত, শ্রীনগর বিমান বন্দর থেকেই বেরোতে পারলেন না রাহুল গান্ধী, সীতারাম ইয়েচুরি, দীনেশ ত্রিবেদীরা। ফিরতি বিমানেই তাঁদের আবার দিল্লি পাঠিয়ে দেওয়া হল। নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে তাঁদের আটকানো হয়, জানিয়েছে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন।

জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক সোশ্যাল মিডিয়ায় রাহুল গান্ধীকে আমন্ত্রণ জানিয়ে বলেছিলেন, ‘শান্ত’ কাশ্মীর ঘুরে যেতে। রাহুল সরাসরি সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে না দিয়ে জানিয়েছিলেন, বিরোধী নেতাদের নিয়ে তিনি কাশ্মীর যাবেন, সেই সময় যেন তাঁদের ‘শান্ত’ কাশ্মীরের বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ করে দেওয়া হয়। কিন্তু সেই সুযোগ পেলেন না রাহুল গান্ধীরা।

এদিকে কুলগামের প্রাক্তন বিধায়ক তথা উপত্যকার জনপ্রিয় সিপিএম নেতা ইউসুফ তারিগামিকে অন্যায়ভাবে আটকে রাখার কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। পিটিশনে ইয়েচুরি দাবি করেছেন, শারীরিকভাবে অসুস্থ তারিগামিকে ঠিকমতো রাখা হচ্ছে না। ২৬ শে অগাস্ট মামলার শুনানি। গত ৯ ই অগাস্ট তারিগামির সঙ্গে দেখা করতেই কাশ্মীর গিয়েছিলেন ইয়েচুরি, ডি রাজা। কিন্তু সেবারও শ্রীনগর বিমানবন্দরেই আটকে দেওয়া হয় তাঁদের।
গত ৫ ই অগস্ট জম্মু-কাশ্মীর থেকে বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর উপত্যকা জুড়ে অঘোষিত কার্ফু জারি হয়। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার দাবি করেছে, উপত্যকার পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। এই প্রেক্ষিতে সরেজমিনে উপত্যকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শনিবার কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী, গুলাম নবি আজাদ, সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি, তৃণমূলের দীনেশ ত্রিবেদী, আরজেডি নেতা মনোজ ঝা, এনসিপির মজিদ মেমন সহ ১২ জন বিরোধী নেতা কাশ্মীরের উদ্দেশে রওনা হন।
অন্যদিকে, বিরোধী নেতাদের কাশ্মীর সফরের খবরে শুক্রবার রাতে জম্মু-কাশ্মীর তথ্য ও জন-সংযোগ দফতর ট্যুইট করে জানায়, যখন জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন সন্ত্রাসবাদ ঠেকাতে এবং উপত্যকার বাসিন্দাদের সুরক্ষা প্রদানে ব্যস্ত, তখন বিরোধী নেতারা শ্রীনগরে গেলে অসুবিধা হতে পারে। তাই তাঁদের কাশ্মীর সফর বাতিল করা উচিত। অন্যদিকে গুলাম নবি আজাদ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে দ্বিচারিতার অভিযোগ করেন। তাঁর অভিযোগ, কেন্দ্র যখন উপত্যকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক বলে দাবি করছে, তখন কেন তাঁদের আটকানো হচ্ছে, কেনই বা মেহবুবা মুফতি, ওমর আবদুল্লারা বন্দি রয়েছেন, এই প্রশ্নও তোলেন কংগ্রেস নেতা।
যদিও শেষ পর্যন্ত কংগ্রেসের রাহুল গান্ধী, তৃণমূল নেতা দীনেশ ত্রিবেদী, সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি, সিপিআইয়ের সাধারণ সম্পাদক ডি রাজা, ডিএমকের তিরুচি শিবাদের কাশ্মীরের শ্রীনগর বিমানবন্দরে নামতেই তাদের আটক করে প্রশাসন। পরে তাঁদের আবার দিল্লির বিমানে তুলে দেওয়া হয়।

Comments
Loading...