পেহলু খান খুনের ঘটনার ফের তদন্তের নির্দেশ রাজস্থান সরকারের, সিট গঠন

পেহলু খান গণপিটুনি মামলায় ৬ অভিযুক্তর বেকসুর খালাস পাওয়ার পর তৈরি হয়েছিল বিতর্ক। যার জেরে পেহলু খান গণপিটুনি মামলায় ৩ সদস্যের বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট) গঠন করে ফের তদন্তের নির্দেশ দিল রাজস্থান সরকার। গত ১৪ ই অগাস্ট পেহুলি খান গণপিটুনি ও তাঁকে খুনের মামলায় মূল অভিযুক্ত ৬ জনকেই বেকসুর খালাসের নির্দেশ দেয় রাজস্থানের এক নিম্ন আদালত। এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সংশ্লিষ্ট মামলার পুনর্তদন্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজস্থান সরকার। বিশেষ তদন্তকারী দলকে (সিট) ১৫ দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট মামলার রিপোর্ট পেশ করতে বলা হয়েছে।
এই মামলা নিয়ে গত ১৭ ই অগাস্ট বেশ কয়েকটি ট্যুইট করেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। একটি ট্যুইটে তিনি জানান, পেহলু খান গনপিটুনি মামলায় নিম্ন আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সিট গঠন করে এই মামলার যাবতীয় খুঁত ও অনিয়ম বের করা হবে বলে জানান তিনি।
রাজস্থান সরকারের এমন সিদ্ধান্তে স্বভাবতই সন্তোষ প্রকাশ করেছে গরু পাচারের অভিযোগে ২০১৭ সালে গণপিটুনিতে মৃত্যু হওয়া পেহেলু খানের পরিবার। তবে এরপরেও তাঁরা উচ্চ আদালতে মামলা করছেন বলে জানিয়েছেন পেহুলু খানের এক আত্মীয়।
গরু পাচারের অভিযোগে ২০১৭ সালের ১ লা এপ্রিল আলওয়াড়ে পেহলু খান এবং তাঁর দুই ছেলের উপর চড়াও হয় গোরক্ষকরা। বেধড়ক মারধর করা হয় তাঁদের। ঘটনার দু’দিন পর হাসপাতালে মৃত্যু হয় পেশায় পেহলু খানের। গোটা ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ভাইরাল হয়। যদিও গত বুধবার রায় দেওয়ার সময় আদালত জানায়, সংশ্লিষ্ট ভিডিও ফুটেজে কোনও গ্রহণযোগ্য তথ্য ধরা পড়েনি। এরপরেই ৯ অভিযুক্তের মধ্যে ৬ জনকে বেকসুর খালাসের কথা ঘোষণা করে রাজস্থানের নিম্ন আদালত।
এদিকে শনিবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় এই মামলা প্রসঙ্গে মন্তব্য করেন, এমন সব মামলায় আদালত যদি ঠিক সময়ে পিটিশন দাখিল করার নির্দেশ দেয় এবং পুরো তদন্তের ওপর নজর রাখতে পারে, তাহলে হয়তো আরও সুষ্ঠু হতে পারে বিচার প্রক্রিয়া।

Comments
Loading...