উচ্চবর্ণের আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর সংরক্ষণের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে ২৫ শতাংশ সিট বৃদ্ধি করছে কেন্দ্র

সম্প্রতি উচ্চবর্ণের আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর মানুষের জন্য শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। ইতিমধ্যেই এই সংক্রান্ত বিল পাশ হয়েছে লোকসভা ও রাজ্যসভায়। বিলে সই করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতিও। তাই এবার এই সংরক্ষণ প্রস্তাবের বাস্তবায়নের উপর জোর দিল কেন্দ্রীয় সরকার। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর জানিয়েছেন, এই ১০ শতাংশ সংরক্ষণের প্রস্তাব বাস্তবায়িত করতে দেশের সবকটি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২৫ শতাংশ আসন বৃদ্ধি করা হবে। বর্তমান যে সংরক্ষণ ব্যবস্থা চালু আছে দেশে, নয়া অতিরিক্ত সংরক্ষণ প্রস্তাব লাগু হওয়ার পর যাতে তাতে কোনও প্রভাব না পড়ে সেই কারণেই এই আসন সংখ্যা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বলে জাভড়েকর জানিয়েছেন। আগামী ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষ থেকেই এই নয়া নিয়ম কার্যকর হবে বলে কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে।
এদিন ইউজিসি ও অল ইন্ডিয়া টেকনিকাল এডুকেশন কাউন্সিলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে এই বিষয়ে বৈঠকও করেন কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী। আসন সংখ্যা বৃদ্ধির এই নির্দেশিকা অতি দ্রুত দেশের সবকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে বলে মন্ত্রী জানিয়েছেন। দেশের প্রায় ৯০০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত ৪০,০০০ সরকারি, বেসরকারি কলেজের সবকটিতে নয়া এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে।
যদিও কেন্দ্রের এই নয়া সংরক্ষণ প্রস্তাবকে সংসদে কম বেশি সব দলই সমর্থন করেছে। তবে বিরোধীদের দাবি, ভোটের আগে চমক বা গিমিক দিতেই এই বিল এনেছে কেন্দ্র। ইতিমধ্যেই এর বিরুদ্ধে আদালতে মামলাও রুজু হয়েছে।

Comments
Loading...