১৭ রাজ্যের ৫৫ রাজ্যসভা আসনে ভোট ২৬ মার্চ, দেখে নিন কোন রাজ্যে কত আসন

১৭ টি রাজ্যে রাজ্যসভার ৫৫ টি আসনে আগামী ২৬ মার্চ ভোট, ঘোষণা নির্বাচন কমিশনের। এর মধ্যে রয়েছে বাংলার পাঁচটি আসনও।   মঙ্গলবার নির্বাশন কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, মহারাষ্ট্র, ওড়িশা, তামিলনাড়ু, পশ্চিমবঙ্গ, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, অসম, বিহার, ছত্তিশগড়, গুজরাত, হরিয়ানা, হিমাচলপ্রদেশ, ঝাড়খণ্ড, মধ্যপ্রদেশ, মণিপুর, রাজস্থান ও মেঘালয়ের ৫৫ টি রাজ্যসভা আসনে ভোটগ্রহণ ২৬ মার্চ। ফলও একই দিনে প্রকাশ করা হবে।

কোন রাজ্য থেকে কত রাজ্যসভার আসন খালি হচ্ছে,

পশ্চিমবঙ্গ

বাংলার পাঁচ আসনের মেয়াদ ফুরোচ্ছে ২ এপ্রিল। সাংসদরা হলেন ঋতব্রত ব্যানার্জি, যোগেন্দ্রনাথ চৌধুরী, কানওয়ার দীপ সিংহ (কে ডি সিংহ), মণীশ গুপ্ত ও আহমেদ হোসেন। এর মধ্যে চারটি আসন এখন রয়েছে তৃণমূলের দখলে। চারটি আসনই ফের নিজেদের দখলে রাখতে তৃণমূলের কোনও সমস্যা নেই। তবে মণীশ গুপ্ত, আহমেদ হাসান, যোগেন চৌধুরী ও কে ডি সিংহের মধ্যে বড় রকমের অঘটন না ঘটলে তৃণমূল থেকে কে ডি সিংহের ফের মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। সূত্রের খবর, একাধিক কারণে দলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয়েছে তাঁর।  দলের হুইপ থাকা সত্ত্বেও নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে ভোটাভুটির সময় কে ডি সিংহ অনুপস্থিত ছিলেন রাজ্যসভায়। অন্যদিকে, সাংসদ ও শিল্পী যোগেন চৌধুরী আর সাংসদ পদে থাকতে চান না বলে দলকে জানিয়ে দিয়েছেন। রাজ্যসভায় তৃণমূলের ডেপুটি লিডার মণীশ গুপ্ত ও সাংসদ আহমেদ হাসানের মনোনয়নের ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নেবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি স্বয়ং। এদিকে নির্দল সাংসদ ঋতব্রত ব্যানার্জির পঞ্চম আসনটি কে পাবেন, সেদিকেই নজর রয়েছে রাজনৈতিক মহলের।

গুজরাত

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর রাজ্য গুজরাতে চার সাংসদের কার্যকালের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৯ এপ্রিল। এর মধ্যে তিনটি আসন রয়েছে বিজেপির দখলে এবং একটি কংগ্রেসের।

মহারাষ্ট্র

এই দফায় সবচেয়ে বেশি রাজ্যসভার আসন খালি হচ্ছে মহারাষ্ট্রে। মোট সাতটি আসনের মধ্যে একটিতে ফের এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার আবার নির্বাচিত হবেন বলে প্রায় ঠিকই হয়ে আছে। বাকি ছয় আসনে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হতে পারে এনসিপি, শিবসেনা, কংগ্রেস ও বিজেপির।
এছাড়াও তামিলনাড়ুতে ছয়, ওড়িশায় চার, অন্ধ্রপ্রদেশে চার, তেলেঙ্গানায় দুই, অসমে তিন এবং বিহারে পাঁচটি রাজ্যসভা আসনের জন্য ভোট নেওয়া হবে।

Comments
Loading...