ক্ষুদ্র-মাঝারি শিল্পকে ৫০ হাজার কোটির প্যাকেজ, ভারতের সম্ভাব্য বৃদ্ধির হার ১.৯%, জানাল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক

বিশ্বজুড়ে চলছে আর্থিক মন্দা। সেই আঁচ এসে পড়েছে ভারতেও। করোনাভাইরাসের তাণ্ডব রুখতে জারি লকডাউনে অর্থনৈতিক পরিস্থিতি আরও হাতের বাইরে চলে গিয়েছে। আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার বর্তমান পরিস্থিতির সঙ্গে মহামন্দার তুলনা করছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও জি ২০ দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি হবে ভারতের অর্থনীতির। দাবি রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার গভর্নর শক্তিকান্ত দাসের।

গত ২৪ মার্চ লকডাউন ঘোষণার পর শুক্রবার এই নিয়ে দ্বিতীয়বার সাংবাদিক বৈঠক করলেন আরবিআই গভর্নর। তিনি বলেন, এ বছর ভারতের সম্ভাব্য আর্থিক বৃদ্ধির হার হবে ১.৯%। যা জি-২০ দেশগুলির মধ্যে সর্বোচ্চ। শক্তিকান্ত দাস আরও দাবি করেন, ২০২১-২২ আর্থিক বছরে ভারতে ৭.৪% বৃদ্ধির আশা করা হচ্ছে। কোন ম্যাজিকে তা সম্ভব, প্রশ্ন উঠছে।

পাশাপাশি ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের জন্য ৫০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে আরবিআই। পরিস্থিতি বুঝে অর্থের পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। যে হেতু এই ক্ষেত্রের সঙ্গে কর্মসংস্থানের সরাসরি যোগ, তাই কেন্দ্রের সিদ্ধান্তকে বড় পদক্ষেপ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

রেপো রেট অপরিবর্তিত থাকলেও রিভার্স রেপো রেট ২৫ বেসিস পয়েন্ট কমিয়ে ৩.৭৫ শতাংশ করা হয়েছে। ব্যাঙ্কগুলি যাতে অতিরিক্ত তহবিল ব্যবহার করতে পারে তাই এই উদ্যোগ বলে জানান তিনি।

একইসঙ্গে এসআইডিবির জন্য ১৫ হাজার কোটি টাকা, মাইক্রো ফিন্যান্সের জন্য ৫০ হাজার কোটির প্যাকেজ, আবাসন শিল্পে ১০ হাজার কোটির প্যাকেজ ঘোষণা করেছে আরবিআই।

এদিন আরবিআই গভর্নর জানান, করোনা মোকাবিলায় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক গোটা পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে। করোনা মোকাবিলায় ব্যাকগুলিতে নগদের জোগান বাড়ানো হয়েছে। মানবিক স্বার্থে যা যা করা প্রয়োজন তা করতে হবে বলে জানান শক্তিকান্ত দাস।

Comments
Loading...