দিল্লির সফদরজং হাসপাতালের সাততলা থেকে মরণঝাঁপ করোনা সন্দেহে ভর্তি অস্ট্রেলিয়া ফেরত যুবকের

করোনা সন্দেহে দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে ভর্তি এক যুবক সাততলার উপর থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন।

দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর, বুধবার রাত ৯ টা নাগাদ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে বছর পঁয়ত্রিশের ওই যুবককে দিল্লির হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবারই অস্ট্রেলিয়ার সিডনি থেকে দেশে ফিরেছিলেন তিনি। কয়েকদিন ধরে তার মাথা ধরার সমস্যা ছিল। দিল্লি এয়ারপোর্টে চেকিংয়ের সময় তাঁকে করোনা সন্দেহে দ্রুত আইসোলেশন ওয়ার্ডে পাঠানো হয়। তাঁর রক্ত, লালারসের নমুনা পরীক্ষায় পাঠানো হয়। রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা না করেই আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে বেরিয়ে হাসপাতালের সাততলা থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন ওই যুবক, এমনটাই জানিয়েছে পুলিশ।

সফদরজং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বেশি রাতে এক বিবৃতি দিয়ে জানায়, বুধবার রাত ৯ টা নাগাদ করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ওই যুবককে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। এআই-৩০১ নম্বর ফ্লাইট ধরে তিনি সিডনি থেকে ভারতে আসেন। গত একবছর ধরে অস্ট্রেলিয়ায় ছিলেন তিনি। বিমানে আসার সময় তাঁর তীব্র মাথা যন্ত্রণা শুরু হয়।  হাসপাতালে নিয়ে আসার পর জোর করে সাততলার সুপার স্পেশালিটি ব্লক বিল্ডিং থেকে বেরিয়ে যান ওই যুবক। তারপর নীচে ঝাঁপ দেন। পুলিশ সূত্রে খবর, আদতে তিনি পঞ্জাবের বাসিন্দা।

এখনও পর্যন্ত ভারতে ১৬১ জনের দেহে করোনাভাইরাস পজিটিভ পাওয়া গিয়েছে। উত্তরপ্রদেশের নয়ডা এবং রাজস্থানে লাগু হয়েছে ১৪৪ ধারা। করোনাভাইরাস আতঙ্কের মধ্যে এ রাজ্যে চালু হয়েছে মহামারি আইন।

 

Comments
Loading...