লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ইতিহাস গড়েও দুশ্চিন্তায় দিন কাটছে পিয়ারলেস রক্ষণের মূল স্তম্ভ মনোতোষের

ময়দানে ইতিহাস গড়ে এবার কলকাতা লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে পিয়ারলেস। দীর্ঘ ৬১ বছর পর তিন প্রধানের বাইরে চ্যাম্পিয়ন হল কোন ছোট দল। স্বাভাবিকভাবেই মাতামাতি চলছে তাদের নিয়ে। যাবতীয় আকর্ষণের কেন্দ্রে দলের স্ট্রাইকার ক্রোমা। কারণ তিনি কলকাতা লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন। কিন্ত কোন দলের সাফল্যের পিছনে যারা গোল করেন তাদের যতটা কৃতিত্ব, ততটাই কৃতিত্ব যারা গোল আটকান তাদেরও। কিন্তু সারা বিশ্বজুড়েই স্ট্রাইকারদের গ্ল্যামারে ঢাকা পড়ে যান ডিফেন্ডাররা। এক্ষেত্রেও তার অন্যথা হয়নি। পিয়ারলেসকে চ্যাম্পিয়ন করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিল তাদের রক্ষণভাগ। সেখানে দুরন্ত ফুটবল উপহার দিয়েছিলেন ব্যান্ডেলের স্টপার মনোতোষ চাকলাদার। মাত্র ২১ বছরের এই ফুটবলার দুটি ম্যাচ বাদ দিয়ে সবকটি ম্যাচেই খেলেছেন। নির্ভরতা দিয়েছেন পিয়ারলেস রক্ষণভাগকে।

তবে কলকাতা লিগ চ্যাম্পিয়ন হলেও মনোতোষের মাথায় এখন ভিড় করছে একরাশ চিন্তা। এর আগে বাংলাকে সন্তোষ ট্রফি চ্যাম্পিয়ন করেছেন। তারপরেও চাকরি পাননি। রেলে চাকরি হওয়ার কথা থাকলেও, নিয়োগ বন্ধ হয়ে যায়। এর আগে ইউনাইটেড স্পোর্টস, মহামেডান, গোকুলামের মতো দলে খেলেছেন তিনি। ব্যান্ডেলের এক নম্বর কাপাসডাঙা অঞ্চলের এক চিলতে ঘরে থাকেন এই ফুটবলার। বাইরে রং চটা ইটের দেওয়াল। তার বাবা রাজমিস্ত্রির কাজ করে সংসার টানেন।

মনোতোষের একটাই স্বপ্ন। একটা চাকরি পেলে, নতুন বাড়ি তৈরি করে সেখানে বাবা-মাকে নিয়ে যাবেন।

পিয়ারলেস দ্বিতীয় ডিভিশনে আই লিগে খেললে, সমস্যা মিটবে আপাতত। কিন্তু না খেললে, বাকি মরসুমের জন্য আর কোনও উপার্জনের রাস্তা থাকবে না মনোতোষের। আর্থিক সমস্যা চরম আকার ধারণ করবে। কলকাতা লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরেও, এই চিন্তাতেই ঘুম হচ্ছে না ময়দানের নতুন তারকা মনোতোষের।

Comments
Loading...