সভা ভণ্ডুল হচ্ছে, আছে প্রাণসংশয়, পুলিশি নিরাপত্তা চেয়ে হাইকোর্টে শুভেন্দু

তৃণমূলের কটাক্ষ, উনি নাকি জননেতা! তাহলে এত নিরাপত্তা নিয়েও সভা করতে পারছেন না কেন?

তাঁর একের পর এক সভায় বিশৃঙ্খলা তৈরি করে অঘটন করার চেষ্টা চলছে। প্রাণসংশয় রয়েছে তাঁর। এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করে তাঁর সভায় পুলিশি নিরাপত্তার দাবিতে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন নব্য বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

শুভেন্দুর তরফে হাইকোর্টে জানানো হয়েছে, তিনি নিজে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পেলেও যেখানে যেখানে তিনি জনসভা করতে যাচ্ছেন সেখানে রাজ্য পুলিশ কোন নিরাপত্তা দিচ্ছে না। ইচ্ছাকৃতভাবে তাঁর জনসভায় অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সভা বানচাল হয়ে যাচ্ছে। তাই জনসভায় যেন পর্যাপ্ত পুলিশি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। পিটিশনে আরও বলা হয়েছে, শুভেন্দুর প্রাণ সংশয় আছে। রাজনৈতিক সভায় নিরাপত্তার অভাব বোধ করছেন তিনি।

তৃণমূল ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দিয়েই রাজ্যপালকে চিঠি দিয়েছিলেন শুভেন্দু। সেই চিঠিতে তাঁর আশঙ্কা ছিল, রাজ্য পুলিশ তাঁকে ও তাঁর অনুগামীদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসাতে চেষ্টা করেছে। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দেন রাজ্যপাল। এবার সেই রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে শুভেন্দুর অভিযোগ, তাঁর সভায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে না তারা।

সম্প্রতি নন্দীগ্রাম ও পুরুলিয়ায় শুভেন্দুর সভা ভণ্ডুল হয়ে যায়। গত ৮ জানুয়ারি নন্দীগ্রামের সভায় প্রবল বিক্ষোভ, চেয়ার ছোড়াছুড়ি, ইটবৃষ্টির মধ্যে তাড়াতাড়ি শেষ হয়ে যায় বিজেপির যোগদান সভা। সেখানে কয়েক মিনিট বক্তব্য রেখেই সভা শেষ করতে দেখা যায় শুভেন্দুকে। একই অবস্থা পুরুলিয়াতেও। কাশীপুর ন’পাড়া রোড শো শুরু করে কাশীপুর মোড় এলাকায় সভা করেছিলেন শুভেন্দু। সেখানে তাঁর বক্তব্য শুরুর আগেই চরম বিশৃঙ্খলা শুরু হয়।

এই প্রেক্ষিতে পুলিশি নিরাপত্তা চেয়ে হাইকোর্টে গেলেন শুভেন্দু। তিনি জানিয়েছেন, গত ডিসেম্বরে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই রাজ্যের শাসক দলের কর্মীদের আগ্রাসনের মুখে পড়েছেন। যেখানেই সভা করতে যাচ্ছেন, সেখানেই সমস্যা তৈরি করা হচ্ছে। সভায় আসা-যাওয়ার পথেও সমর্থকদের উপরও হামলা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয় আদালতে।
পিটিশনে আরও জানানো হয়, সদ্য জুট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন তিনি। যা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সমতুল্য। এখন তিনি কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পেলেও রাজ্য পুলিশ কখনওই তাঁর নিরাপত্তায় ঢিলেমি দিতে পারে না। তাই তাঁর রাজনৈতিক জনসভা, যাত্রাপথে নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য রাজ্য পুলিশকে নির্দেশ দেওয়ার জন্য পিটিশনে আর্জি জানানো হয়েছে।

Comments
Loading...