অক্সিজেনের ভাণ্ডার গরু, গায়ে হাত বোলালেই উধাও শ্বাসকষ্ট, এবার গো-বন্দনায় উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিংহ রাওয়াত

শুধু গাছ নয়, গরুও অক্সিজেন দেয়, এমনই অজানা তথ্য দিলেন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা ত্রিবেন্দ্র সিংহ রাওয়াত।
গরুই একমাত্র প্রাণী যে অক্সিজেন গ্রহণ ও বর্জন করে, গরুর গায়ে হাত বোলালে শ্বাসকষ্ট সেরে যায়। গত বৃহস্পতিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিয়োয় এমনই বলতে শোনা যায় উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিংহ রাওয়াতকে। বিজেপি নেতাকে এও বলতে শোনা যায়, গরুকে ‘গোমাতা’ বলার কারণ, এটাই একমাত্র প্রাণী যে মানুষকে অক্সিজেন সরবরাহ করে। গোমূত্র ও গোবরের প্রচুর গুণ। গোমূত্র সেবনে নানা দূরারোগ্য ব্যধি সেরে যায় বলে দাবি উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর। শুধু তাই নয়, গরুর কাছাকাছি থাকলেও নাকি বিরাট উপকার, টিবির মতো অসুখ নিরাময় হয়। বিজ্ঞানীরাও এবিষয়ে একমত হয়েছেন, মন্তব্য বিজেপি নেতা ত্রিবেন্দ্র সিংহ রাওয়াতের।
উত্তরাখণ্ডের মুখমন্ত্রীর আগেও অবশ্য গরু সম্পর্কে ‘অজানা’ তথ্য দিয়েছেন ভোপালের বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা সিংহ ঠাকুর বা রাজস্থানের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা বাসুদেব দেবনানিরা। লোকসভা ভোটের আগে প্রজ্ঞা সিংহ জানিয়েছিলেন, গরুর গায়ে নির্দিষ্ট ভাবে হাত বোলালে চট করে রক্তচাপ কমে যায়। এখানেই অবশ্য থামার প্রয়োজন মনে করেননি প্রজ্ঞা সিংহ । তাঁর ক্যানসার এভাবেই সেরেছিল বলেও প্রকাশ্যে দাবি করেছিলেন মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত ভোপালের বিজেপি সাংসদ।
উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর মতো ২০১৭ সালে রাজস্থানের বিজেপি নেতা বাসুদেব দেবনানিও একই দাবি করেছিলেন। তিনিও বলেছিলেন, গরু শ্বাস নেওয়ার সময় অক্সিজেন নেয়, বর্জনের সময়ও অক্সিজেনই ত্যাগ করে। গত সেপ্টেম্বরে উত্তরাখণ্ড বিধানসভায় গরুকে ‘জাতীয় মাতা’ হিসেবে ঘোষণার আবেদন করেছিলেন মন্ত্রী রেখা আর্য। উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী বা রাজস্থানের শিক্ষামন্ত্রীর মতো তিনিও গরু নিয়ে একই তথ্য দেন।

Comments
Loading...