গ্রেফতারি এড়াতে সুপ্রিম কোর্টে অর্ণব গোস্বামী! তাঁকে আক্রমণ নিয়ে তাঁর করা ভিডিও কি আগেই তৈরি করা? কী বলছে তথ্য

রাহুল গান্ধীর মন্তব্যকে বিকৃত করা, সোনিয়া গান্ধীর বিরুদ্ধে আপত্তিকর মন্তব্য এবং মহারাষ্ট্রের পালঘরে সন্ন্যাসী খুনের ঘটনায় জাতি বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগে রিপাবলিক টিভির সম্পাদক এবং সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে দেশের একাধিক থানায় এফআইআর দায়ের করেছেন কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা। সেই এফআইআরের ভিত্তিতে তাঁকে যেন এখনই গ্রেফতার করা না হয়, সেই আর্জি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে গেলেন অর্ণব।

পালঘরে গণপিটুনির ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে কংগ্রেস সহ অন্যান্য বিজেপি বিরোধী দল, বিজেপি শিবির থেকে এই অভিযোগ করা হয়েছিল। গত ২৩ এপ্রিল এই ঘটনা নিয়ে অনুষ্ঠানে সেই অভিযোগকেই নয়া মাত্রা দেন অর্ণব গোস্বামী। সরাসরি টেনে আনেন সোনিয়া গান্ধীর নাম। কংগ্রেসের অভিযোগ, সোনিয়া গান্ধীর বিরুদ্ধে আপত্তিকর শব্দ প্রয়োগ করেছেন অর্ণব গোস্বামী। এরপর তাঁর বিরুদ্ধে দেশজুড়ে বহু অভিযোগ দায়ের করেন কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা। তার বেশিরভাগই মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ, তেলঙ্গানা ও ছত্তিসগঢ়ে।

এই এফআইআরের ভিত্তিতে তাঁকে যেন এখনই গ্রেফতার না করা হয়, এই আর্জি নিয়ে বৃহস্পতিবার রাত ৮ টা নাগাদ সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন অর্ণব গোস্বামীর আইজীবী। শুক্রবার বিচারপতি চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি এম আর শাহের বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হওয়ার কথা।

অন্যদিকে বুধবার রাতে অফিস থেকে বাড়ি ফেরার সময় মুম্বইয়ের রাস্তায় যুব কংগ্রেস কর্মীদের হাতে সস্ত্রীক অর্ণব নিগৃহীত হন বলে অভিযোগ।

সেই ঘটনায় নিজের প্রতিক্রিয়া দিয়ে একটি ভিডিও বুধবার গভীর রাতে প্রকাশ করেন অর্ণব গোস্বামী। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এই ভিডিও নিয়ে শুরু হয় নয়া বিতর্ক। কংগ্রেসের দাবি, অর্ণব গোস্বামীর বক্তব্যের ভিডিও অনেক আগে তোলা। ইচ্ছাকৃতভাবে যুব কংগ্রেসকে কালিমালিপ্ত করতে বিজেপির প্ল্যান মোতাবেক কাজ করছেন তিনি।

যুব কংগ্রেসের ক্যাম্পেন ইন চার্জ শ্রীবৎস ট্যুইটে প্রশ্ন তোলেন, বিজেপির জাতীয় মুখপাত্র সম্বিত পাত্র এবং চিত্র পরিচালক অশোক পণ্ডিত কী করে ঘটনার কথা রিপাবলিক টিভি জানানোর আগেই জেনে ফেললেন? শ্রীবৎস এই দাবির স্বপক্ষে তুলে ধরেন চ্যানেলে এই সংক্রান্ত প্রথম ট্যুইটের সময় এবং ওই দুই ব্যক্তির ট্যুইটের সময়। দেখা যায়, সম্বিত পাত্র কিংবা অশোক পণ্ডিত, রিপাবলিক টিভির আগেই এই ঘটনার কথা ট্যুইট করেছেন।

কংগ্রেস আইটি সেলের ন্যাশনাল কো-অর্ডিনেটর গৌরব পান্ধি মেটাডাটা তুলে ধরে দাবি করেন, তাঁর উপর হামলা হয়েছে বলে অর্ণব গোস্বামী যে ভিডিওটি করেছেন, তা হামলার আগে রেকর্ড করা।

কিন্তু সত্যিটা কী?

ফেক নিউজ নিয়ে ধারাবাহিকভাবে খবর করে আসা ইংরেজি নিউজ পোর্টাল AltNews এর অন্তর্তদন্তে উঠে এসেছে আসল সত্য। তারা জানাচ্ছে, কংগ্রেসের দুটি অভিযোগই সর্বৈব মিথ্যে।

AltNews জানাচ্ছে, মেটাডাটায় যে সময়টির কথা তুলে ধরে বিতর্ক চলছে, তা আসলে গ্রিনিচ মিন টাইম বা ইউনিভার্সাল টাইম কো-অর্ডিনেটেড (UTC)। অর্থাৎ, তার সঙ্গে আরও সাড়ে ৫ ঘণ্টা যোগ করলে তবেই মিলবে ভারতীয় সময় বা IST। AltNews দেখিয়েছে ভিডিওটি শ্যুট করা হয়েছিল ২৩ এপ্রিল রাত ১ টা ৪৭ মিনিটে। ঠিক যে সময় রিপাবলিক টিভি এই ভিডিওটি আপলোড করে।

AltNews এর প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, অর্ণব গোস্বামীর গাড়ির উপর হামলার ঘটনা রিপাবলিক টিভিতে প্রথম সম্প্রচারিত হয় রাত পৌনে ১ টায়।

তারপর ১ টা বেজে ৪৭ মিনিটে দেখানো হয় সেই ঘটনার ফুটেজ। কিন্তু রাত ১ টার সামান্য পরে সম্বিত পাত্র এবং অশোক পণ্ডিত হামলার ঘটনা নিয়ে ট্যুইট করেন। তার অন্তত ১৭ মিনিট আগেই খবরটি রিপাবলিক টিভিতে সম্প্রচারিত হয়েছে। ফলে রিপাবলিক টিভি তা জানানোর আগেই সম্বিত পাত্র এবং অশোক পণ্ডিত হামলার ঘটনা জেনেছিলেন, এই অভিযোগও সত্যি নয়।

Comments
Loading...