দেশে মৃত্যু ছাড়ালো ১ হাজার, ৬০% মৃত্যুই মহারাষ্ট্র এবং গুজরাতে! মঙ্গলবার দেশে একদিনে আক্রান্ত প্রায় ২ হাজার মানুষ

দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা এক হাজার ছাড়ালো। সমীক্ষা বলছে, তার মধ্যে ৬০ শতাংশ মৃত্যুই হয়েছে মহারাষ্ট্র এবং গুজরাত, এই দুই রাজ্যে।
এই দুই রাজ্যে মঙ্গলবার ৫০ জন করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে।
আহমেদাবাদে মঙ্গলবার একদিনে ফের ১৯ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হওয়ায় এই শহরে মৃত্যুর সংখ্যা পৌঁছেছে ১২৯ এ। দু’দিন আগেও একদিনে ১৯ জন করোনায় মারা যান সেখানে। অন্যদিকে, মহারাষ্ট্রে মঙ্গলবার ৩১ জনের মৃত্যুর মধ্যে ২৫ টি ঘটনাই মুম্বইয়ের। কয়েকজনের মৃত্যু কিছুদিন আগে হলেও মহারাষ্ট্র সরকার মঙ্গলবার এই মৃত্যুর সংখ্যা নিশ্চিত করেছে। মহারাষ্ট্র ও গুজরাত, দুই রাজ্যে মোট ৫৮৩ জনের মৃত্যু হল কোভিড ১৯ এ। মহারাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা ৪০০ এবং গুজরাতে ১৮৩।
মঙ্গলবার করোনা আক্রান্তের সংখ্যাতেও সর্বাধিক বৃদ্ধি হয়েছে ভারতে। একদিনে ১,৯০৫ জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। যার মধ্যে মহারাষ্ট্র, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ, দিল্লি, তামিলনাড়ু, এই পাঁচ রাজ্যে ১,৫০৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, যা দেশের করোনা আক্রান্তের প্রায় ৭৯ শতাংশ।
শুধু মহারাষ্ট্রেই ৭২২ টি নতুন করোনা পজিটিভ কেস এসেছে একদিনে। গুজরাত, দিল্লি এবং মধ্যপ্রদেশের ২০০ টি করে আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে। উত্তরপ্রদেশে সেদিক থেকে মঙ্গলবার নতুন সংক্রমণের সংখ্যা বেশ কম। যোগী রাজ্যে ৬৭ টি নতুন করোনা পজিটিভ কেস ধরা পড়েছে মঙ্গলবার।
তাৎপর্যপূর্ণভাবে, কেরল, কর্ণাটক ও তেলেঙ্গানা, যে তিন রাজ্যে করোনা সংক্রমণের হার ব্যাপক ছিল, সেখানে গত কয়েকদিনে সংক্রমণের হার কমেছে। মোট ১ হাজার ৭ টি করোনা পজিটিভ কেস থাকা তেলেঙ্গানায় গত চারদিনে মাত্র ১৭ জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর মিলেছে। শেষ চারদিনে কর্ণাটকে ২৩ টি এবং কেরলে ২৮ টি নতুন করে করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর এসেছে। দুই রাজ্যে করোনা পজিটিভের সংখ্যা যথাক্রমে ৫২৩ এবং ৪৮৫।
কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, দেশজুড়ে যে ১৭৭ টি জেলা করোনা হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত হয়েছিল তা এখন কমে ১২৭ টিতে এসেছে। ১২৭ টি জেলা এখন রেড জোন আওতাভুক্ত। গত দু’ সপ্তাহে ‘কমলা জেলা’র সংখ্যা ২০৭ থেকে বেড়ে ২৫০ হয়েছে। সরকার এও জানিয়েছে, দেশে ২২ হাজার করোনা অ্যাক্টিভ কেসের মধ্যে মাত্র ৮০ জন রোগী ভেন্টিলেটর সাপোর্টে ছিলেন।

Comments
Loading...