Mamata: বাংলা জিতলেই দিল্লিতে ঝাঁপাব, তাই আমার উপর BJP’র এত রাগ

বাংলার বিধানসভা ভোটে বিজেপিকে হারাতে পারলে সারা দেশে অন্যতম বিজেপি বিরোধী মুখ হিসেবে উঠে আসবেন মমতা ব্যানার্জি

বাংলা জিতলেই দিল্লিতে ঝাঁপাব। ওদের দিল্লি ছাড়া না করে আমার শান্তি নেই। বৃহস্পতিবার খড়্গপুরের কলাইকুণ্ডার জনসভা থেকে ঘোষণা তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জির। একাধিক রাজনীতিক এর আগে দাবি করেছিলেন, একুশে বাংলার ভোটের ফলাফল চব্বিশে লোকসভা ভোটের নির্ণায়ক শক্তি হতে চলেছে। এদিন মমতা ব্যানার্জির মন্তব্যে ফের একবার তা স্পষ্ট হল। 

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশের মত, বাংলার বিধানসভা ভোটে বিজেপিকে হারাতে পারলে সারা দেশে অন্যতম বিজেপি বিরোধী মুখ হিসেবে উঠে আসবেন মমতা ব্যানার্জি। সেক্ষেত্রে  ২০২৪ এ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির বিকল্প হিসেবে একটি জোট শক্তির উত্থান ঘটার সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে। ফলে গেরুয়া শিবিরের জন্য বাংলার ভোট গুরুত্বপূর্ণ, মত ওয়াকিবহল মহলের একাংশের।

এদিন নির্বাচনী প্রচারে তৃণমূল নেত্রী গড়বেতা, কেশিয়ারি এবং কলাইকুণ্ডায় পরপর তিনটি জনসভা করেন। গড়বেতার সভা থেকে মমতার অভিযোগ, নন্দীগ্রামে যাঁরা জমি আন্দোলন করেছেন, বিজেপি তাঁদের গ্রেফতার করতে চাইছে। সম্প্রতি নন্দীগ্রামে মমতার ইলেকশন এজেন্ট শেখ সুফিয়ান সহ বেশ কয়েকজন নেতার নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছিল। তৃণমূল মনে করছে, জমি আন্দোলনকারীদের গ্রেফতার করিয়ে মমতা ব্যানার্জিকে ধাক্কা দিতে শুভেন্দু অধিকারী এই সব করাচ্ছেন। এদিন মমতার গলাতেও সেই সন্দেহের সুর। তিনি বলেন, বিজেপির কথা শুনে সাধারণ মানুষকে বেছে বেছে গ্রেফতার করছে। আমার দাবি বিজেপিকেও গ্রেফতার করতে হবে।   

কিছুদিন আগে দেখা গিয়েছিল কয়েকজন বিজেপি সমর্থক কফিহাউসে ঢুকে বিজেপি বিরোধী পোস্টার ছিঁড়ে দেন। নো ভোট টু বিজেপি ও বাম সমর্থকদের সঙ্গে বিজেপি সমর্থকদের কথা কাটাকাটি হয়। উত্তেজনা দেখা দেয় কফিহাউসে। এদিন মমতার বক্তব্যে সে কথা উঠে আসে। বিজেপিকে আক্রমণ করে বলেন, কফিহাউস দখল করতে চাইছে বিজেপি, এত বড়ো সাহস! 

[আরও পড়ুন- দিদির বাংলায় TMC মানে ট্রান্সফার মাই কমিশন! পুরুলিয়া থেকে আক্রমণে মোদী]

তিনটি জনসভাতেই এদিন ঘুরে ফিরে তৃণমূল ত্যাগীদের প্রসঙ্গ উঠে আসে। মমতার তোপ, কয়েকটা গদ্দার আমাদের দলে ছিল।  ওঁরা ভিতরে ভিতরে বিজেপি করত। 

এদিন মমতার ভাষণে, উল্লেখযোগ্যভাবে একাধিকবার সিপিএম নেতা সুশান্ত ঘোষ, তপন ঘোষদের কথা উঠে আসে। তিনি বলেন, দয়া করে আপনার ভোটটা ওই সুশান্ত ঘোষ, তপন সুকুরদের দেবেন না। ওঁদের দেওয়া মানেই বিজেপির হাত শক্ত করা। বুধবারের সভার মত এদিনও  মমতা বামপন্থীদের কাছে ভোটের আবেদন করেন। তাঁর কথায়, আমার বামপন্থী বন্ধুদের, মাওবাদী বন্ধুদের বলব, তৃণমূলকে ভোট দিন। সিপিএম, কংগ্রেস বিজেপির গোপন আঁতাতের অভিযোগ ফের একবার তুলে বিজেপিকে বিষাক্ত সাপের সঙ্গে তুলনা করেন তিনি।

Comments
Loading...