পালঘর সাধুহত্যা ও বান্দ্রায় শ্রমিক বিক্ষোভ ইস্যুতে অর্ণবকে শো-কজ নোটিস মুম্বই পুলিশের! ১৬ তারিখের মধ্যে হাজিরার নির্দেশ

ফের মুম্বই পুলিশের র‍্যাডারে অর্ণব গোস্বামী। মহারাষ্ট্রের পালঘর গণপিটুনি মামলা ও বান্দ্রায় পরিযায়ী শ্রমিকদের জড়ো হওয়ার ঘটনায় ধর্মীয় উস্কানিমূলক খবর পরিবেশনের অভিযোগে রিপাবলিক টিভির চিফ এডিটর অর্ণব গোস্বামীকে শো-কজ নোটিস পাঠাল মুম্বই পুলিশে।

পালঘর সাধুহত্যার ঘটনায় এর আগেও অর্ণবকে নোটিস দেওয়া হয়েছিল। এবার পালঘর গণপিটুনির মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে ধর্মীয় উস্কানিমূলক মন্তব্যে করার অভিযোগ আনা হয়েছে। এছাড়া বান্দ্রায় পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়েও তিনি একই ধরনের মন্তব্য করেছেন বলে পুলিশের অভিযোগ। শো-কজ নোটিসে অর্ণবের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে, কেন তাঁর বিরুদ্ধে কোড অফ ক্রিমিন্যাল প্রসিডিওর বা সিআরপিসি-র ১০৮ নম্বর সেকশনের আওতায় মামলা করা হবে না?

আগামী ১৬ অক্টোবর অর্থাৎ, শুক্রবার বিকেল ৪ টের মধ্যে ওরলি ডিভিশনের স্পেশ্যাল এগজিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার অফ পুলিশের সামনে অর্ণব গোস্বামীকে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসিপির সামনে রিপাবলিক টিভির অন্যতম কর্ণধার ও অ্যাঙ্করকে ব্যাখ্যা করতে হবে কেন তাঁর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করবে না পুলিশ। অর্ণবের ব্যাখ্যা সন্তোষজনক মনে না হলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করতে পারেন এসিপি। সেক্ষেত্রে  অর্ণব গোস্বামীকে লিগাল সিকিউরিটি বন্ডে সই করে জানাতে হবে আগামী এক বছর এ ধরনের ব্যবহার তিনি করবেন না। তা অমান্য করলে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা দিতে হবে অর্ণবকে। এছাড়া তাঁকে প্রতিশ্রুতি দিতে হবে যে, রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক কোনও বিষয়কে ছড়িয়ে দেওয়ার কাজে আর তিনি লিপ্ত হবেন না। এই বন্ডের এক বছর মেয়াদ পর্যন্ত অর্ণবকে এমন একজনকে সিকিউরিটি হিসেবে রাখতে হবে যিনি বন্ডের সময়কালের জন্য তাঁর আচরণের দায় গ্রহণ করবেন।

গত ২১ এপ্রিল অর্ণব গোস্বামীর চ্যানেল রিপাবলিক টিভিতে ‘পুছতা হ্যায় ভারত’ বলে একটি বিতর্ক অনুষ্ঠান হয়। সেখানে মহারাষ্ট্রের পালঘরে দুই সাধু ও তাঁদের ড্রাইভারের উপর হওয়া হামলা নিয়ে আলোচনা হচ্ছিল। সঞ্চালকের দায়িত্বে ছিলেন অর্ণব গোস্বামী নিজে। সেখানেই তিনি ধর্ম বিদ্বেষী মন্তব্য করেন বলে অভিযোগ মুম্বই পুলিশের। এছাড়াও তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, লকডাউন অমান্য করে বান্দ্রা রেল স্টেশনের বাইরে পরিযায়ী শ্রমিকদের ভিড়কে উদ্দেশ্য করেও উস্কানিমূলক মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

কিছুদিন আগেই টিআরপি রেটিং সংক্রান্ত কারচুপির অভিযোগে রিপাবলিক টিভি ও দুটি মারাঠি চ্যানেলের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে মুম্বই পুলিশ। তার মধ্যেই সুশান্ত সিংহ মামলায় বলিউডের ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টার অভিযোগে অর্ণব গোস্বামীদের বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে বলিউডের নাম করা প্রযোজনা সংস্থাগুলি।

 

 

Comments
Loading...