‘হয়তো বিচ্যুত হয়েছিলাম, ঘরে ফিরলাম’, বিজেপি থেকে তৃণমূলে ফিরে বিপ্লব মিত্র মমতা ব্যানার্জির হাত শক্ত করার ডাক দিলেন

২১ জুলাই দলনেত্রী ডাক দিয়েছিলেন। ১০ দিনের মধ্যে সেই ডাকে সাড়া দিয়ে তৃণমূলে ফিরলেন দক্ষিণ দিনাজপুরের বিপ্লব মিত্র ও প্রশান্ত মিত্র। গত লোকসভা ভোটের পর দিল্লি গিয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন মিত্র ভাইয়েরা। মাত্র ১৩ মাসেই মোহভঙ্গ, ফিরলেন তৃণমূলে।
তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যত জন্মলগ্ন থেকেই মমতার সঙ্গে ছিলেন দক্ষিণ দিনাজপুরের বিপ্লব। মমতা তাঁকে দক্ষিণ দিনাজপুরের তৃণমূল সভাপতি করেছিলেন। কিন্তু প্রবল মোদী হওয়ায় ভর করে লোকসভা ভোটে বিজেপির ১৮ আসন জেতা বদলে দেয় পুরনো সেই সমীকরণ। মমতার হাত ছেড়ে মোদীর দলে নাম লেখান তৃণমূল জেলা সভাপতি বিপ্লব। সঙ্গে নিয়ে যান গঙ্গারামপুর পুরসভার চেয়ারম্যান তথা তৃণমূল নেতা প্রশান্ত মিত্রকে। রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন ওঠে মুকুল রায়ের কৌশলেই বিপ্লব মিত্র ভাইকে নিয়ে দল বদল করলেন। দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে কৈলাস বিজয়বর্গীয় এবং রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে দু’পাশে নিয়ে হাসিমুখে বিজেপির পতাকা তুলে নিয়েছিলেন বিপ্লব মিত্র। তার ঠিক ১৩ মাস বাদে সেই দিনের কথা মনে করে বিপ্লব বললেন, হয়তো নীতি আদর্শ থেকে বিচ্যুত হয়েছিলাম। ভুল ভেঙেছে। তাই ঘরে ফিরলাম। বিজেপিকে রুখতে মমতার হাত শক্ত করার আবেদন করলেন তিনি।
এদিন বিপ্লবের ঘরে ফেরা অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জি। দক্ষিণ দিনাজপুরের তৃণমূল জেলা সভাপতি গৌতম দাস এবং সদ্য প্রাক্তন জেলা সভাপতি অর্পিতা ঘোষ। বিপ্লব মিত্র ও প্রশান্ত মিত্র তৃণমূলে ফেরায় জেলায় দলের শক্তিবৃদ্ধি হল বলে দাবি গৌতম দাসের। তিনি বলেন, দলনেত্রীর নির্দেশিত পথে লড়াই করেই আগামী বিধানসভা জয় করতে হবে।
গত লোকসভা ভোটে উত্তরবঙ্গে শোচনীয় ফল হয়েছে তৃণমূলের। কিন্তু বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপি শিবিরে বিপ্লব ও প্রশান্ত মিত্রের মাপের নেতাকে ঘরে ফিরিয়ে এনে কি তৃণমূল খেলা ঘোরাতে পারবে? সেটাই এখন বড় প্রশ্ন।

Comments
Loading...