স্বাভাবিক বর্ষার পূর্বাভাস মৌসম ভবনের, আশায় গ্রামীণ ভারত

মারণ করোনাভাইরাসের থাবায় যখন গোটা বিশ্ব জর্জরিত, তখন কিছুটা হলেও আশার আলো আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাসে। ২০২০ সালে ভারতে স্বাভাবিক বর্ষা হবে, জানিয়ে দিল মৌসম ভবন। স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হবে অগাস্ট ও সেপ্টেম্বরে।

ইন্ডিয়ান মেটেরোলজিক্যাল ডিপার্টমেন্ট সাধারণত দুই দফায় আবহাওয়ার পূর্বাভাস জারি করে। প্রথম দফায় এপ্রিল ও পরের দফায় মে মাসের শেষ সপ্তাহে। এই পূর্বাভাস থেকেই পরিস্কার হয়ে যায় বর্ষাকালে ঠিক কতটা বৃষ্টি পেতে চলেছে ভারতের খেত খামার। আসন্ন বর্ষায় ৮৮ সেন্টিমিটার অর্থাৎ স্বাভাবিক বৃষ্টি হবে বলে মনে করছে আবহাওয়া দপ্তর। উল্লেখ্য, দেশে জুন থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে সারা বছরের ৭৫ শতাংশ বৃষ্টি হয়।

মধ্য প্রশান্ত মহাসাগরে তৈরি হওয়া এল নিনো যা ভারতীয় বর্ষা কার্যত শুষে নেওয়ার ক্ষমতা রাখে, বলে মনে করেন আবহবিদরা, এবার তার কোনও প্রভাব ভারতে পড়বে না বলেই ধারণা তাঁদের। যার ফলে ভারতে আগামী বর্ষার মরসুমে লং পিরিয়ড অ্যাভারেজের ১০০ শতাংশ বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন হাওয়া অফিসের প্রধান এম মহাপাত্র।

সাধারণত গত ৫০ বছরের বৃষ্টিপাতের গড়ের ৯৬ থেকে ১০৪ শতাংশ বৃষ্টি হলে তাকে স্বাভাবিক বর্ষা বলে ধরা হয়। অথবা বর্ষার ৪ মাস ধরে ৮৮ সেন্টিমিটারের লং পিরিয়ড অ্যাভারেজ।

সাধারণত জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে কেরল উপকূল দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে বর্ষা। সেপ্টেম্বর অবধি চলে বৃষ্টিপাত। গত বছর বর্ষা এক সপ্তাহ দেরি করে ৮ জুন কেরল উপকূলে পৌঁছেছিল।

গত বছরের ভারি বর্ষণের পর এই বছরে সঠিক পরিমান বৃষ্টি কৃষিকাজে খুবই উপকারি হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এই কৃষি ব্যবস্থার উপরই দেশের সিংহভাগ মানুষের জীবিকা নির্ভর করে। কাজেই ভাল ফলনের জন্য স্বাভাবিক বর্ষা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

Comments
Loading...