নিরামিষ পদের রাজা “শুক্তো”, শুধু স্বাদে নয়, সুস্থও রাখবে আপনার শরীর

শুক্তো যেমন স্বাদ ভরপুর, তেমনি তাতে লুকিয়ে রয়েছে স্বাস্থ্য রক্ষার চাবিকাঠি।

বসন্তের আগমন মানে শীতের কম্বল গুটিয়ে ফেলে গরমকে আহ্বান জানানো। আবহাওয়া বদল মানেই রোগের আগমন। তাই বড়দের মুখে শোনা যায়, এ সময় যত বেশী তিতো জাতীয় খাবার খাওয়া যায় ততই শরীর সুস্থ থাকবে। এই কথাকে সহমত জানিয়ে চিকিৎসকরা বলছেন, আবহাওয়া বদলের সময় বেশি করে শাকসবজি জাতীয় খাবার এবং তেতো খাবার খাওয়া উচিত।

তেতো মানেই বাঙালির মনে উচ্ছে বা করলার স্মৃতি ফিরে ফিরে আসে। আর উচ্ছে বা করলার কথা মনে আসতেই যা প্রথমে আসে তা হল বাঙালির অন্যতম নিরামিষ রান্না “শুক্তো”। শুক্তো যেমন স্বাদ ভরপুর, তেমনি তাতে লুকিয়ে রয়েছে স্বাস্থ্য রক্ষার চাবিকাঠি। জেনে নিন কিভাবে শুক্তো রান্না করলে তা স্বাদে ভরপুর হবে সঙ্গে স্বাস্থ্যকরও।

উপকরণ

উচ্ছে বা করলাঃ ১টি

কাঁচাকলাঃ ১ টি

বড়িঃ পছন্দ মতো

বেগুনঃ ছোট ১ টি

আলুঃ ৩-৪ টি

রাঙা আলু বা মিষ্টি আলুঃ ১ টি

কাঁচা লঙ্কাঃ ২ টি

বিনঃ পরিমাণ মতো

পাঁচফোড়ন

হলুদ গুঁড়োঃ ১ চা চামচ

আদা বাটাঃ ১ চামচ

ঘিঃ ১ টেবিল চামচ

সর্ষের তেলঃ পরিমাণ মতো

সর্ষে বাটাঃ ১ চামচ

স্বাদ মতো নুন

ঘিঃ সামান্য পরিমাণ

প্রণালী : প্রথমে আপনি সব্জিগুলো মাপ মতো কেটে ভাল করে ধুয়ে নিন। এর পর কড়াইতে ১ টেবিল চামচ তেল গরম করে তাতে কিছু বড়ি ভাল মতো ভেজে একটি প্লেটে তুলে রাখুন। বড়ি ভাজা তেলেই উচ্ছে বা করলাগুলো একটু নুন দিয়ে ভেজে এক জায়গায় তুলে রাখতে হবে। এরপর বাকি তেল গরম করে দিয়ে দিন পাঁচফোড়ন। সুগন্ধ বেরতে শুরু করলেই তাতে ছেড়ে দিতে হবে বাকি সব্জিগুলো। সব্জিগুলো আলতো করে ভেজে নিয়ে এর সঙ্গে সর্ষে বাটা দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে দিন। এর পর ২ কাপ জল যোগ করে ভাল করে নাড়িয়ে নিন। ১৫ মিনিট ধরে রান্না করার পর ভাজা বড়িগুলো এর মধ্যে দিয়ে দিন সব্জিগুলো ভাল করে সেদ্ধ হওয়া পর্যন্ত ১০ মিনিটের মতো আরও রান্না করে নিন। ১০ মিনিট পর আপনি শুক্তোর উপর দিয়ে ছড়িয়ে দিন সামান্য ঘি।

Comments
Loading...